Add Recipe

শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণ লক্ষণ ও প্রতিকার

শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য ও পেট ফাঁপা আমাদের দেশে একটি সাধারণ সমস্যা। অনেক মায়েরাই বিশেষত যারা প্রথম সন্তানের মা হয়ে থাকেন,তারা প্রায়শই বুঝে উঠতে পারেন না যে কোষ্ঠকাঠিন্যের বা পেট ফাপার কারণ কি আর কি করলে এ সমস্যার সমাধান হবে। তাই আপনাদের জন্য আজকের এই পোস্ট।
শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য হবার প্রচলিত ও সাধারণ কারণ সমূহ
• খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন
• সলিড খাবার খাওয়া শুরু করলে
• গরুর দুধ খাওয়া শুরু হলে
• জল বা পানীয় কম খেলে
• মেডিকেশান
• পারিবারিক ইতিহাস
কোষ্ঠকাঠিন্যের নিম্নলিখিত উপসর্গ ও লক্ষণ
•কঠিন ও শক্ত মলত্যাগ (কতক্ষন বাদে বাদে মলত্যাগ হচ্ছে সেটা দিয়েই কোষ্ঠকাঠিন্যকে সংজ্ঞায়িত করা যায় না, তাছাড়াও কত ঘন ঘন মলত্যাগ হচ্ছে, সেটা গুরুত্বপূর্ন)
•মলের সাথে রক্ত যাওয়ার অর্থ হলো মলদ্বারে টিয়ারশেল থাকে অতিরিক্ত চাপে টিয়ারশেল গুলো ছিড়ে যায় ফলে মলের সাথে রক্ত আসে।
•কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য পেট ফোলা ও চাপের কারণে বাচ্চার পেট শক্ত হয়ে যায় কিংবা ভরা ভরা লাগে।
•কোষ্ঠকাঠিন্য হলে শিশুদের খুব তাড়াতাড়ি পেট ভরা ভরা লাগে।
প্রতিকার
কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগা শিশুদের জন্য এই উচ্চ ফাইবারযুক্ত খাবারগুলি দেখুন। ফাইবার যুক্ত খাবার গুলো শুধু সাময়িকভাবে শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করবে তা নয় বরং পরবর্তীতে শিশুদের কোষ্ঠকাঠিন্য হওয়ার ঝুঁকির কমাতে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে।
১. মটরশুটি
মটরশুটিতে দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় উভয় প্রকারের ফাইবারই থাকে যা শিশুদের হজমে এবং পায়খানা সজজে সহজে বের করে দিতে সহায়তা করে।
২. এপ্রিকট
এপ্রিকট হল আর একটি ঋতুজ ফল যা কোষ্ঠকাঠিন্য চিকিত্সার জন্য ব্যবহৃত হয়। এটা কাঁচা বা রস আকারে দেওয়া যেতে পারে। শুকনো এপ্রিকট বাজারে পাওয়া যায়, যা সারারাত জলে ভিজিয়ে শিশুকে দেওয়া যেতে পারে।
৩. ওটমিল
ওটমিল, শিশুদের একটি সাধারণ এবং সর্বাধিক পছন্দসই খাদ্য, এটি বার বার কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগতে থাকা শিশুদের জন্য একটি চমৎকার খাবার। ওটমিল প্রচুর প্রয়োজনীয় ফাইবার সরবরাহ করে এবং পায়খানা শক্ত হয়ে যেতে বাধা দেয়।
৪. নাশপাতি
নাশপাতি হল আর একটি ফল যা ফাইবার এবং ভিটামিন সি সমৃদ্ধ। ফাইবার এবং ভিটামিন সি উভয়ই সঠিক হজমে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য উপশমে সহায়তা করে। এছাড়াও বাচ্চাদের কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময় করার জন্য তাজা নাশপাতির রস কয়েক ফোঁটা দেওয়া যেতে পারে।
৫. ব্রোকলি
ব্রোকলি, শিশুদের জন্য একটি মহান খাদ্য, প্রোটিন এবং ফাইবার একটি সমৃদ্ধ উৎস। ছোট ফুলগুলি স্টীম করা যায় এবং আঙুলে তুলে খাওয়ার খাদ্য হিসাবে দেওয়া পারে। এটা নির্গমন প্রক্রিয়া সহজ করবে।
৬. মিষ্টি আলু
অন্যান্য কন্দের তুলনায় মিষ্টি আলু, বাচ্চাদের কোঠকাঠিন্য না ঘটানো একটি খাবার। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে সহায়তা করে এবং বাড়ন্ত শিশুদের জন্য অনেক প্রয়োজনীয় পুষ্টি এবং কার্বোহাইড্রেট সরবরাহ করে।
৭. হোমমেইড সিরিয়াল জাতীয় খাবার
লাল চাল, পোলাও চাল, ভুট্টা, মুগ ডাল ,মসুর ডাল, বুটের ডাল ,কাঠ বাদাম, চিনাবাদাম, কাজুবাদাম ,খেজুর, কিসমিস। এই খাবারগুলো উচ্চ ফাইবারসমৃদ্ধ তাই এসব খাবার দ্বারা তৈরি বেবি সিরিয়ালগুলো নিয়মিত খাওয়ালে, বেবিদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা সমাধান হওয়ার পাশাপাশি শিশুর রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করার জন্য, প্রয়োজনীয় সব পুষ্টি উপাদান এই এক খাবারেই পেয়ে যাবে। ফলে শিশুর ওজন ও উচ্চতা বৃদ্ধি পাবে ও মেধার সঠিক বিকাশ নিশ্চিত হবে।হোমমে ইড বেবি সিরিয়াল অর্ডার করতে ভিজিট করুন: https://www.healthgear.com.bd/shop/
৮. খেজুর : খেজুরে যেমন প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে, তেমনই একই সঙ্গে থাকে প্রচুর মাল্টিভিটামিন। রাতে খেজুর ভিজিয়ে রেখে সকালে সেই ভেজা খজুর বাচ্চাকে দিতে পারেন. এতে পেট পরিষ্কার হয়। অনেকে বাচ্চাদের খেজুরের জুস-ও খাওয়ান। বিদেশে বাবা-মায়েরা বাচ্চাদের প্রুন খাওয়ান। সেক্ষেত্রেও একই রকম কাজ হয়। এদেশে প্রুনের তুলনায় খেজুর সহজলোভ্য। তবে এতে আপনার সোনার অ্যালার্জি জাতীয় কোনও সমস্যা হবে কি না, তা চিকিৎসকের কাছ থেকে জেনে নিন।
৯. বিনস : বিনস খুবই উপকারী একটি সবজি। কারণ এর মধ্যে একই সঙ্গে জলে দ্রবীভূত হওয়ার মতো বা ওয়াটার সলিউবল (water soluble) ফাইবার থাকে, আবার জলে দ্রবীভূত হয় না বা ইনসলিউবল (water insoluble), এমন ফাইবারও থাকে। দুটোই শিশুর জন্য খুব উপকারি। কোষ্ঠের সমস্যার ক্ষেত্রে এটি বড় সমাধান।

You May Also Like

Leave a Review

Your email address will not be published. Required fields are marked *

X
Have no product in the cart!
0